Friday, January 27, 2023
HomePhilosophy১১ ফেব্রুয়ারি ধ্বংসের মুখে পড়তে পারে পৃথিবী, সতর্কতা জারি করল নাসা

১১ ফেব্রুয়ারি ধ্বংসের মুখে পড়তে পারে পৃথিবী, সতর্কতা জারি করল নাসা

নাসা জানিয়েছে, ২০২২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার, একটি বড় গ্রহাণু পৃথিবীর খুব কাছ দিয়ে যাবে। এই গ্রহাণুটি যদি কোনও ভাবে পৃথিবীর সঙ্গে ধাক্কা খায়, তাহলে বড় ধরনের ধ্বংসযজ্ঞ হতে পারে।

 

NASA information

NASA warned on February 11 the world would face asteroid closely BDD

বড় সঙ্কটের সম্পর্কে হুঁশিয়ারি

 

করোনা মহামারি পৃথিবীর সবচেয়ে বড় সঙ্কট রয়ে গেলেও, নাসার বিজ্ঞানীরা এর থেকেও পৃথিবীর আরও এক বড় সঙ্কটের সম্পর্কে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, যা শুনে সবার কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে। নাসা জানিয়েছে, ২০২২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার, একটি বড় গ্রহাণু পৃথিবীর খুব কাছ দিয়ে যাবে। এই গ্রহাণুটি যদি কোনও ভাবে পৃথিবীর সঙ্গে ধাক্কা খায়, তাহলে বড় ধরনের ধ্বংসযজ্ঞ হতে পারে।

NASA information

 

NASA warned on February 11 the world would face asteroid closely BDD

দৈত্যাকার গ্রহাণু

 

আমাদের পৃথিবী প্রতিদিন মহাকাশ থেকে পড়া অনেক গ্রহাণুর মুখোমুখি হয়, এই গ্রহাণুগুলির মধ্যে অনেকগুলি পৃথিবীর খুব কাছ দিয়ে যায়, আবার অনেকগুলি আকাশ সমুদ্রে বিলীন হয়, কিন্তু যদি একটি দৈত্যাকার গ্রহাণু সমুদ্রের পরিবর্তে মাটিতে পড়ে। তবেই হবে মহান ধ্বংস।

এই গ্রহাণু কত বড়

NASA information

 

নাসা জানিয়েছে, পৃথিবীর দিকে দ্রুত এগিয়ে আসা এই গ্রহাণুর আকার এম্পায়ার স্টেট বিল্ডিংয়ের চেয়ে অনেক বেশি। এর নামকরণ করা হয়েছে 138971 (2001 CB21)। এই গ্রহাণুর প্রস্থ ৪২৬৫ ফুট এবং নাসা এটিকে পৃথিবীর সবচেয়ে নিকটবর্তী গ্রহাণুর তালিকায় রেখেছে। তবে পৃথিবীর সবচেয়ে কাছ থেকে যাওয়ার পরও এটি পৃথিবী থেকে তিন মিলিয়ন মাইল অতিক্রম করবে।

 

 

NASA warned on February 11 the world would face asteroid closely BDD

এই গ্রহাণুটি আবার ২১৯৪ সালের ১ অক্টোবর পৃথিবীর কাছাকাছি আসবে

 

 

এই গ্রহাণুটি প্রথম দেখা যায় ২১ ফেব্রুয়ারি ১৯০০ সালে। তারপর থেকে, এটি প্রায় প্রতি বছর সৌরজগতের কাছাকাছি চলে যায়। এটি ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ এ শেষ দেখা গিয়েছিল। এর আগে এটি ২০১১ এবং ২০১৯ সালে উপস্থিত হয়েছিল।

নাসার গণিত

 

যদিও নাসা এখনও কোন জায়গা দিয়ে যাবে তা জানায়নি, তবে এটি ১১ ফেব্রুয়ারি এবং ২৪ এপ্রিল পৃথিবীর খুব কাছ দিয়ে যাবে। নাসার গণিত অনুসারে, এই গ্রহাণুটি ২১৯৪ সালের ১১ অক্টোবরের মধ্যে পৃথিবীর আরও কাছাকাছি চলে আসবে।

ক্ষুদ্র গ্রহের তথ্য

 

এমন অনেক গ্রহাণু রয়েছে যেগুলি আকারে খুব ছোট। পৃথিবীর কাছাকাছি যাওয়ার পরও এ ধরনের ক্ষুদ্র গ্রহের তথ্য পাওয়া যায় না। এমন পরিস্থিতিতে নাসা একটি প্রচার শুরু করেছে, যা এই সমস্যার অবসান ঘটাবে।

দানবাকৃতির পাথর খণ্ড

 

ভুল করেও যদি গ্রহাণুগুলো পৃথিবীর সাথে ধাক্কা খায়, তাহলে পৃথিবীতে ধ্বংসযজ্ঞ হতে বাধ্য এবং সেজন্যই এই ক্ষুদ্র গ্রহগুলোর ওপর কড়া নজর রাখা হয়। যাতে মহাজাগতিক এই ঘটনা যা দানবাকৃতির পাথর খণ্ড থেকে মানবসভ্যতাকে রক্ষা করা যায়।

 

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

১১ ফেব্রুয়ারি ধ্বংসের মুখে পড়তে পারে পৃথিবী, সতর্কতা জারি করল নাসা



Hero

Welcome to the future of building with WordPress. The elegant description could be the support for your call to action or just an attention-catching anchor. Whatever your plan is, our theme makes it simple to combine, rearrange and customize elements as you desire.

Translate »