এ কেমন প্রেম! স্বামীকে ছেড়ে সৎ ছেলেকে বিয়ে

প্রেম মানে না কোনো বাধা, মানে না কোনো ব্যবধান, দেখে না কোনো সম্পর্কের বেড়াজাল। কখনো কখনো হয়তো কোনো কোনো প্রেমের সম্পর্ক সমাজের চোখে দৃষ্টিকটু লাগে। কিন্তু প্রেম তো। তাতে সবই সম্ভব! চলুন জেনে নেওয়া যাক এমনই এক প্রেমের গল্প। রাশিয়ার ক্রাসোন্দার ক্রাই নামক এলাকায় বেশ জনপ্রিয় নাম মারিনা ব্লামাশেভা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বহু ফলোয়ার রয়েছে তার। ৩৫ বছর বয়সী মারিনা সম্পর্কে নিজের থেকে ১৫ বছরের ছোট ভ্লাদিমিরের সৎমা। ভ্লাদিমিরের বাবা ‘আর’র বছর দশেক আগে বিয়ে করেছিলেন এই সুন্দরীকে। এক দশকের ‘অসুখী’ দাম্পত্যের পর মারিনা বুঝতে পারেন, ‘না, তিনি কখনো আরে’কে ভালোবাসেননি’। তিনি ভালোবেসেছেন সৎ ছেলে ভ্লাদিমিরকে। তারপর বাবার অজান্তেই শুরু হয়ে যায় সৎ মা এবং ছেলের প্রেম। একে অপরের সঙ্গে শারীরিক-মানসিক সবদিক থেকেই জড়িয়ে যান। সেই প্রেম এবার গড়াল বিয়ের পিঁড়ি পর্যন্ত। নিজের স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে গত সপ্তাহেই সৎ ছেলেকে বিয়ে করেছেন মারিনা।

এ কেমন প্রেম! স্বামীকে ছেড়ে সৎ ছেলেকে বিয়েরেজিস্ট্রি অফিসে বিয়ে করার পর রীতিমতো বিয়ের পোশাকে সেজে রিসেপশনেরও আয়োজন করেছেন মারিনা এবং তার ১৫ বছরের ছোট ‘বর’। বেশ কিছু অতিথিও এসেছিলেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় মারিনা লিখছেন, আমি আমার সত্যিকারের জীবনসঙ্গীকে খুঁজে পেয়েছি। ইচ্ছে ছিল এ বছরের শুরুর দিকেই বিয়েটা সেরে ফেলব। কিন্তু লকডাউনের জন্য সেটা হলো না। গত সপ্তাহেই আমরা বিয়ে করেছি। এই ঘটানার সবচেয়ে বড় ব্যাপার হলো, মারিনা ও ভ্লাদিমিরের এই বিয়ে মারিনার আগের স্বামী তথা ভ্লাদিমিরের বাবাও মেনে নিয়েছেন। অনেকে অবশ্য সৎ সন্তানের সঙ্গে মারিনার এই বিবাহের সম্পর্ক খোলা মনে মানতে পারছেন না। কিন্তু তাতে কি আসে যায়!

সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »