মাসিকের সময় যে ১০ কাজ ভুলেও করবেন না | পিরিয়ড চলাকালীন সময়ে যেসব বিষয় মেনে চলা উচিত

মাসিক চলাকালীন অনেক নারীই নানা সমস্যায় ভোগেন। বিশেষ করে শারীরিক অস্বস্তি যেন পিছু ছাড়তেই চায় না। কখনো অতিরিক্ত রক্তপাত, কখনো আবার পেটে ব্যথা।

এ সময় শরীরের পাশাপাশি মনেও পরিবর্তন আসে। ঘন ঘন মেজাজ হারাতে থাকে। সব মিলিয়ে বেশ অস্বস্তিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

মাসিকের সময় কয়েকটি ভুল কাজের জন্য নানা ধরনের সমস্যা ও অস্বস্তি বাড়তে থাকে। বিশেষ করে এ সময় ১০টি কাজ একেবারেই করবেন না।

>> এ সময় চিপস কিংবা নোনতা খাবার খাবেন না। এমনিতেই মাসিকের সময় শরীর বেশ ভারী লাগে। তার উপর এসব খেলে শরীরে পানি জমতে পারে।

>> মাসিক চলাকালীন রাত জাগবেন না। এতে শরীর আরও ক্লান্ত হয়ে পড়তে পারে। একইসঙ্গে ঋতুস্রাবজনিত অস্বস্তিও বাড়তে পারে।

>> মাসিকের কারণে আবার শরীরচর্চা বন্ধ করবেন না। বরং মাসিকের সময় শরীরচর্চা করলে শারীরিক বিভিন্ন সমস্যা দূর হয়।

>> এ সময় ভুলেও দীর্ঘক্ষণ খালি পেটে থাকবেন না। যেহেতু মাসিকের সময় শরীর থেকে বেশ খানিকটা রক্ত বেরিয়ে যায়, তাই এ সময় পুষ্টিকর খাবার খাওয়া উচিত।

>> মাসিক চলাকালীন ভুলেও ওয়াক্স করবেন না। এ সময় শরীরের মতো ত্বকও হয়ে পড়ে অনেক সংবেদনশীল। তাই ওয়াক্স করালে বেশি ব্যথা পেতে পারেন।

>> এ সময় দই, দুধ বা দুগ্ধজাত খাবার খেলে গ্যাস্ট্রিকসহ কোষ্ঠকাঠিন্যও দেখা দিতে পারে।

>> এ সময় অতিরিক্ত কফি খাবেন না। উচ্চ মাত্রায় ক্যাফেইন পেটে বথ্যা বাড়িয়ে তুলতে পারে।

>> একটি স্যানিটারি প্যাড ৪-৬ ঘণ্টার বেশি ব্যবহার করবেন না। বেশিক্ষণ ব্যবহৃত স্যানিটারি প্যাড ব্যাকটেরিয়ার আঁতুরঘরে পরিণত হয়। একইসঙ্গে দুর্গন্ধ ছড়াতে পারে ও ত্বকে ফুসকুড়ি ও টিএসএস (টক্সিক শক সিনড্রোম) হতে পারে।

>> স্যানিটারি প্যাড বা ম্যানস্ট্রুয়াল কাপ ছাড়া ঘুমাবেন না। যদি প্যাড পরে শুতে অস্বস্তি হয় তাহলে আরামদায়ক প্যাড ব্যবহার করুন।

>> ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য বিপজ্জনক জানলেও অনেকেই মানেন না। তবে মাসিকের সময় ধূমপান করলে প্রচণ্ড ব্যথা হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

প্রতিটি নারীর জন্য পিরিয়ড বা মাসিক খুবই সাধারণ একটি শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া। প্রতি মাসে সঠিক সময়ে মাসিক শুরু হওয়ার মাধ্যমে নারীর শারীরিক সুস্থতাও নিশ্চিত হয়। 

এই মাসিকের সময় নারীদের কিছু কাজ করা থেকে, কিছু খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকা উচিৎ নিজেদের সুস্বাস্থ্যের জন্যে। তবে অনেকেই এ ব্যাপারে সচেতন নয়। গ্রামের মানুষগুলো পরিবারের কাছ থেকে যে পিরিয়ড সর্ম্পকে জ্ঞান লাভ করছে তা বিজ্ঞানী ও এবং ডাক্তারদের তথ্যের মাঝে অনেক অমিল পাওয়া গেছে।

একটা মেয়ের বয়স যখন ১২- ১৩ তখন তাঁর মাসিক হয় শুরু হয়। বয়স ৫২ বা তার কাছাকাছি বয়সে গিয়ে মাসিক পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়। ডাক্তাররা যেটাকে বলে, সেটা হলো যদি পুরো এক বছর মাসিকটা বন্ধ থাকে, তখনই আমরা বলি সে মেনোপোজে গেছে। মেনেপোজের আগের সময়টাতে তার কিছু শারীরিক পরিবর্তন দেখা দেয়। একারণে পিরিয়ডের সময় নারীদের বাড়তি সচেতনতা প্রয়োজন।

১। পিরিয়ড চলাকালীন সময়ে ঠান্ডা পানি, কোমল পানীয় এবং নারিকেল খাবেন না।

২।এসময় মাথায় শ্যাম্পু ব্যাবহার করবেন না। কারণ পিরিয়ডের সময় চুলের গোড়া আলগা হয় ফলে লোমকূপ উন্মুক্ত হয়ে পড়ে।শ্যাম্পু ব্যবহার এসময় অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ এবং দীর্ঘস্থায়ী মাথাব্যথার কারণ হতে পারে।

৩।এসময় শশা খাবেন না। কারণ শশার মধ্যে থাকারস পিরিয়ডের রক্তকে জরায়ু প্রাচীরে আটকে দিতে পারে। যার ফলে আপনার বন্ধ্যা হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

৪।এছাড়াও লক্ষ্য রাখবেন, পিরিয়ডের সময় যেন শরীরে শক্ত কিছুর আঘাত না লাগে, বিশেষত পেটে। পিরিয়ডের সময়টায় জরায়ু খুব নাজুক থাকে ফলে অল্প আঘাতেই মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে।

যার ফলে পরবর্তীতে জরায়ু ক্যান্সার,জরায়ুতে ঘাঁ কিংবা বন্ধ্যাত্যের ঝুঁকি থাকে। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, পিরিয়ড চলাকালীন সময়ে ঠান্ডা পানি পান করার ফলে পিরিয়ডের রক্ত বের না হয়ে জরায়ু প্রাচীরে জমাট বাঁধতে পারে। যা পরবর্তী ৫ থেকে ১০ বছরের মধ্যে জরায়ু টিউমার বা ক্যান্সারের আকার ধারণ করতে পারে।

সূত্র: হেলথশটস

মাসিক কত দিন হয়, মাসিকের সময় চাকা রক্ত যায় কেন, মাসিকের সময় সহবাস করা যাই কি না, মাসিকের সময় পেট ব্যথার কারণ, মাসিকের সময় কি কি সমস্যা হয়, মাসিকের সময় পেটে ব্যাথা হলে করণীয়,মাসিক অল্প হওয়ার কারণ মাসিক চক্র হিসাব,মাসিক হওয়ার কতদিন পর সহবাস করা যায়, মাসিক দেরিতে হয় কেন, বাচ্চা নিতে না চাইলে করণীয় কি, অনিয়মিত মাসিকের ঔষধ, ইসলামিক নিয়মে বাচ্চা নেওয়ার নিয়ম, বাচ্চা নেওয়ার সঠিক সময়, মাসিক ইংরেজি মাসিক নিয়মিত করার ট্যাবলেট,মাসিক বন্ধ হলে কি সহবাস করা যায়, সহবাসের পর কতক্ষণ শুয়ে থাকতে হয়, বাচ্চা নেওয়ার সঠিক সময়, মাসিক হলে কি বাচ্চা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, কখন সহবাস করলে সন্তান হবে না, জরায়ু অপারেশনের কতদিন পর সহবাস করা যায়, Safe period কি, মাসিক কত দিন পর পর হয়,জরায়ু কেটে ফেলার পর কি কি সমস্যা হয়, জরায়ু না থাকলে কি কি সমস্যা হয়, জরায়ু কেটে ফেললে কি মাসিক হয়, জরায়ু অপারেশনের পর সমস্যা ইউটেরাসের ছবি জরায়ু, অপারেশন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া, জরায়ু অপারেশনের পর

Read More: হ্যাল এলরড 10টি বানী হ্যাল এলরড 10টি বানী

পেইজটি ফলো করুন করুন।

Subscribe to the Daily News Times bd.com YouTube channel and follow the Facebook page.

 

উক্ত আর্টিকেলের উক্তি ও বাণীসমূগ বিভিন্ন ব্লগ, উইকিপিডিয়া এবং .. রচিত গ্রন্থ থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে।

 

তথ্যসূত্র: Wikipedia, Online

Sourc of : Wikipedia, Online

 

ছবিঃ ইন্টারনেট

দৃষ্টি আকর্ষণ এই সাইটে সাধারণত আমরা নিজস্ব কোনো খবর তৈরী করি না.. আমরা বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবরগুলো সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি.. তাই কোনো খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কতৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। ধন্যবাদ সবাইকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »