মহাকাশ দখলের’ দাবি প্রত্যাখ্যান করলেন ইলন মাস্ক

স্টারলিংক’ স্যাটেলাইট ইন্টারনেট প্রকল্প মহাকাশে জায়গা দখল করে ফেলছে– এমন অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন স্পেসএক্স ও টেসলা প্রধান ইলন মাস্ক। পৃথিবীর কাছাকাছি কক্ষপথেই “কয়েকশ’ কোটি” স্যাটেলাইটের জায়গা দেওয়া সম্ভব বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

ইলন মাস্ক উদীয়মান মহাকাশ পর্যটন খাতের “নিয়ম-নীতি বানাচ্ছেন”– সম্প্রতি এমন মন্তব্য করেছেন ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি (ইএসএ) প্রধান। চলতি সপ্তাহে মাস্কের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে চীনও; মাস্কের স্টারলিংক স্যাটেলাইটের সঙ্গে সংঘর্ষ এড়াতে গতিপথ পাল্টাতে বাধ্য হয়েছিল চীনের নির্মাণাধীন স্পেস স্টেশন।

 

কিন্তু ফাইন্যানশিয়াল টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মাস্ক বলেছেন, “মহাকাশ অত্যন্ত বিশাল আর স্যাটেলাইটগুলো একদম ছোট।” স্টারলিংক প্রকল্প স্যাটেলাইট শিল্পে প্রতিযোগী প্রতিষ্ঠানের প্রবেশের পথ আটকে দিচ্ছে এমন অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন মাস্ক; বলছেন, পৃথিবীর কক্ষপথে স্যাটেলাইটগুলোর জন্য যথেষ্ট জায়গা আছে।

 

“আমরা অন্যদের জন্য কোনোভাবে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করছি, পরিস্থিতি এমন নয়। অন্য কারও কিছু করার পথ আমরা আটকাইনি এবং এমন কিছু করার চিন্তাও নেই আমাদের।”

“কয়েক হাজার স্যাটেলাইট কোনো ব্যাপারই না। পৃথিবীতে কয়েক হাজার গাড়ি থাকার মতো বিষয় এটা, আসলে এটা কিছুই নয়।”– যোগ করেন তিনি।

কিন্তু ডিসেম্বর মাসেই ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সির প্রধান জোসেফ অ্যাশবাকার মন্তব্য করেন, স্টারলিংকের কয়েক হাজার স্যাটেলাইটের ফলে প্রতিদ্বন্দ্বীদের স্যাটেলাইটের জন্য জায়গা কমে যাবে।

 

মাস্ক যেমনটা বলছেন, সংঘর্ষ এড়াতে মহাকাশযানগুলোর মধ্যে তার চেয়ে বেশি জায়গা রাখা প্রয়োজন বলে মন্তব্য বিশেষজ্ঞদের– জানিয়েছে বিবিসি।

 

মহাকাশে সংঘর্ষের আশঙ্কা নিয়ে আগেও মুখ খুলেছেন মহাকাশ বিজ্ঞানীরা। পৃথিবীকে ঘিরে ঘুরতে থাকা ৩০ হাজার স্যাটেলাইট এবং বর্জ্যের তথ্য উন্মুক্ত করার জন্য বিভিন্ন দেশের সরকারের প্রতি আগেও আহ্বান জানিয়েছেন গবেষকরা।

 

ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে এসে মাস্ক খবরের শিরোনাম হয়েছেন চীনের সামাজিক মাধ্যমগুলোর বদৌলতে। স্টারলিংক স্যাটেলাইটের সঙ্গে সংঘর্ষ এড়াতে চীনের স্পেস স্টেশনের গতিপথ পাল্টাতে হয়েছে– চীনের সংবাদমাধ্যমগুলোতে এই খবর ফলাও করে প্রকাশিত হওয়ার পর চীনের সামাজিক মাধ্যমগুলোয় সোজাসাপ্টা মাস্ককে ‘ধুয়ে দিয়েছেন’ দেশটির নাগরিকরা।

 

 

বেইজিং-এর দাবি, চলতি বছরেই স্টারলিংক স্যাটেলাইটের সঙ্গে অন্তত দু’বার সংঘর্ষ হতে যাচ্ছিল চীনের স্পেস স্টেশনের। চীনের পক্ষ থেকে জাতিসংঘে জমা দেওয়া নথি অনুযায়ী ওই সম্ভাব্য ওই দুই ঘটনার তারিখ ১ জুলাই ও ২১ অক্টোবর।

 

চীনের মহাকাশ গবেষণা সংস্থার ওয়েবসাইটে প্রকাশিত নথিতে বলছে “নিরাপত্তার কারণে চীনের স্পেস স্টেশনকে সংঘর্ষ এড়ানোর ব্যবস্থা প্রয়োগ করতে হয়েছে।।”

 

তবে চীনের দাবিগুলো এখনও স্বাধীনভাবে যাচাই করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে বিবিসি।

 

ইতোমধ্যে মহাকাশে এক হাজার নয়শ’ স্যাটেলাইট পাঠানো হয়েছে স্টারলিংক নেটওয়ার্কের অংশ হিসেবে। প্রকল্পের অংশ হিসেবে আরও কয়েক হাজার স্যাটেলাইট পাঠানোর পরিকল্পনা রয়েছে ইলন মাস্কের।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »