Wednesday, January 26, 2022
Home Blog

CS, RS, SA, PS, BS জরিপ কি?ভূমি জরিপ বা খতিয়ান চেনার সহজ উপায় জেনে নিন ৫ মিনিটেই জমির আরএস খতিয়ান

0

রেকর্ড বা জরিপ প্রচলিতভাবে খতিয়ান বা স্বত্ত্বলিপি বা Record of Rights (RoR) নামেও পরিচিত। রেকর্ড বা জরিপের ভিত্তিতে ভূমি মালিকানা সম্বলিত বিবরণ খতিয়ান হিসেবে পরিচিত, যেমন CS খতিয়ানRS খতিয়ান, ইত্যাদি। “সিএস” হলো Cadastral Survey (CS) এর সংক্ষিপ্ত রূপ।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

দু’হাজার বছর আগেও ছিল ‘কম্পিউটার! আজও বিস্ময় জাগায় রহস্যময় যন্ত্র

0

১৯০০ সাল। গ্রিসের সিমি দ্বীপের এক দল স্পঞ্জ সংগ্রহকারী ডুবুরি অ্যান্টিকিথেরা দ্বীপের কাছে সমুদ্রের ৪৫ মিটার গভীরে ডুবে থাকা এক প্রাচীন রোমান জাহাজের সন্ধান পান। সেই জাহাজের ধ্বংসাবশেষ থেকে উদ্ধার হয় বেশ কিছু দামি প্রত্নবস্তু। যার মধ্যে ছিল ব্রোঞ্জ ও মার্বেল পাথরের মূর্তি, রঙিন পাত্র, কাচের সরঞ্জাম, গয়না, প্রাচীন মুদ্রা ইত্যাদি। সেই সঙ্গে পাওয়া যায় এক রহস্যময় বস্তু। সেটি যে ঠিক কী, তা সেই ডুবুরিরা বুঝতে পারেননি।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

তিন মেয়েই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, গর্বিত বাবা

0

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন আহমদ কবির। তার স্ত্রী নিলুফার বেগম ঢাকা সিটি কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক। তাদের তিনমেয়ে, উপমা কবির, শৈলী কবির ও মিত্রা কবির, তিনজনই এখন ঢাকাবিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষক। এই পরিবারের প্রায় সকলেই ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে। উপমা কবির বলেন, দেশের স্বনামধন্য শিক্ষাবিদদের

খুব কাছ থেকে দেখার অভিজ্ঞতা হয়েছে সেই ছেলেবেলায়। তাদের দেখে তাদের মতো হওয়ার একটা আগ্রহ জাগত। তাই হয়তো আমাদের তিন বোনেরই শিক্ষকতায় আসা। আরেক বোন মিত্রা কবির বলেন,

ছোটবেলা থেকেই গণিত বা পদার্থবিজ্ঞানের প্রতি আমার মনোযোগ অনেক বেশি। তিনি ছায়ানটের শিল্পীও ছিলেন। ২০০৪ সালে স্টার সার্চ প্রতিযোগিতাতেও পুরস্কার পেয়েছিলেন তিনি। তিন বোনই মেডিকেল বা

একই বিভাগে পড়ালেও অবশ্য তারা একসঙ্গে কাজ করতে পেরেছেন খুবই কম। উচ্চতর শিক্ষার জন্য কেউ না কেউ দেশের বাইরে ছিলেন। তবে মিত্রা কবির বললেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির নির্বাচনের দিনের এক বিরল ঘটনার কথা। বাবা, তিন বোন এবং দুজনের স্বামী—একসঙ্গে ৬ জন শিক্ষক হিসেবে ভোট দিতে গিয়েছিলেন। দিনটি তাদের জন্য সত্যিই অন্য রকম গর্বের ছিল। শিক্ষক পরিবারের পরের প্রজন্মও কি একই পথে হাঁটার স্বপ্ন দেখছে? শৈলী কবির বলেন, ‘শিক্ষক হওয়া সহজ নয়। একটা জাতিকে গড়ে তোলার দায়িত্ব থাকে শিক্ষকতায়। আমি অবশ্যই চাই এমন সম্মানের একটা জায়গা তাঁরা নিজেদের জন্য গড়ে তুলুক, নিজ নিজ যোগ্যতায়।’ বুয়েটেপড়ারঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আরও ঔদার্যভরা একটা দৃষ্টিভঙ্গি পাব।’ সঙ্গে শৈলী কবির যোগ করলেন, ‘মেডিকেলে ভর্তি হওয়ার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজাল্ট পাই। কম্পিউটার সায়েন্সে চান্স পেয়েছি দেখে ঢাবিতে চলে আসি; কারণ, মনে হয়েছে এটাই আমার আপন জায়গা।’

সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু সেই সুযোগ ছেড়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সিদ্ধান্ত নেন। উপমা কবির বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়টা অনেক বড়, এখানে মনটাও বড় হয়ে যায়। আমার কাছে মনে হয়েছিল,

 

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

তসলিমা নাসরিনের নাসরিনের স্বর্গের দর্শন!

0

গত কয়েকদিনে ফেসবুক আমাকে তিন বার হত্যা করলো। আজ অন্তত আট ঘণ্টা মৃত পড়েছিলাম। ভেবেছিলাম, স্বর্গে ট্বর্গে যাবো না, জলে ভেসে থাকবো কচুরিপানার মতো। কিন্তু উনি খবর পাঠালেন। যেতেই নাকি হবে।

দেখা হতেই আমি সোজা বললাম, কী ব্যাপার, ফেসবুককে দিয়ে কি আপনিই আমাকে বারবার মারছেন?

উনি হো হো করে হেসে উঠলেন। বললেন, এটা রহস্যই থাক।

উনি আমাকে হঠাৎ বিকিনি দিলেন পরতে।

বিকিনি দিয়ে কী হবে? জিজ্ঞেস করলাম।

উনি বললেন, কী আবার? বেদানার রসের সাগরে সাঁতার কাটবে।

–না না এত ঠাণ্ডায় সাঁতার কাটা যাবে না। জমে পাথর হয়ে যাবো।

–এই তো সুইচ টিপে পানি গরম করে দিচ্ছি। আর কাউকে বিশ্বাস না করলেও আমাকে তো করতে পারো।

অনেকক্ষণ সাঁতরে এলাম। উনি তোয়ালে হাতে নিয়ে বসে ছিলেন পাড়ে।

বললাম, –আপনাকে ভালো না বেসে পারা যাচ্ছে না। বেদানার রসের সাগর চাইলাম, আর আপনি বানিয়ে দিলেন।

–তুমি যা চাও, আমি তা-ই দিতে রাজি।

–ঠিক তো?

–ঠিক।

 

আমি ভেজা বিকিনি ছেড়ে জিন্স পরে নিলাম। এইবার আরাম কেদারায় আরাম করে বসে বললাম, –সাপ বিচ্ছু আমি খুব ভয় পাই, দোযখের লোকদের পুঁজ খাওয়ানোটা ডিজগাস্টিং, আর মাথার ওপর অমন বেশি পাওয়ারের সূর্য নামিয়ে আনাটাও শাস্তি হিসেবে খুব প্রিমিটিভ। জ্বলে পুড়ে ছাই হয়ে যাওয়ার কথা ওদের, কিন্তু আপনি ছাই করছেন না। এভাবে শাস্তি দেওয়ার আইডিয়াটা কি আপনার মাথা থেকে এসেছে নাকি অন্য কারও? আপনি তো বেশ অমায়িক, আন্তরিক। হৃদয় বলে কিছু তো আছে আপনার। দেখুন, আমার তো হাজারো শত্রু, দিন রাত আমার বিরুদ্ধে মিথ্যে বলছে, অশ্লীলতা করছে, আমাকে ছিঁড়ে খেতে চাইছে। আমি তো কারও জন্য আপনার শাস্তির মতো শাস্তির কথা কল্পনাও করতে পারি না। আমি এত ছোট, এত তুচ্ছ, আমিই তো সবাইকে ক্ষমা করে দিই।

–তুমি তাহলে কী করতে বলো আমাকে?

–সবাইকে ক্ষমা করে দিন। ওরা তো আপনারই সৃষ্টি। আমি কোনও কবিতা সৃষ্টি করলাম, সেই কবিতাকে কি কুচি কুচি করে কাটতে পারবো? পারবো না, কবিতার জন্য একটা মায়া থাকবে আমার।

–তুমি কি মনে করো আমার মায়া নেই?

–আছে। নিশ্চয়ই আছে। আমার জন্য আপনার প্রচুর মায়া। কিন্তু ওই যে দোযখে বসে কাঁদছে বেচারাগুলো, ওদের মায়া করুন। ওদের বের করে এনে দোযখগুলো একে একে বন্ধ করে দিন। সাপ বিচ্ছুগুলোকে পৃথিবীতে পাঠিয়ে দিন। দোযখী সাপ বিচ্ছু নিয়ে এন্থ্রপলজিস্টরা একটু গবেষণা করার সুযোগ পাক।

–তাহলে কী দাঁড়ালো?

–আপনাকে মহান হতে হবে। মহান হলে কেউ প্রতিশোধ নেয় না, শারীরিক শাস্তি দেয় না। যারা ভুল করে, অন্যায় করে, তাদের জন্য একটি সংশোধনাগার খুলুন। তাহলেই তো সমস্যা দূর হয়।

–তুমি তো ভালো বুদ্ধি দিচ্ছ।

–আমি তো ভালোই বুদ্ধি দিই। দোযখ বানাবার বুদ্ধি আপনাকে কে দিয়েছিল শুনি?

–আর বোলো না। কী যে ওলোট পালোট হয়ে গেছে সব। আচ্ছা, আমাকে কি পৃথিবীর লোকেরা মহান ভাবে না?

–যাদের মাথায় ঘিলু আছে, তারা প্রশ্ন করে। মহান হলে এমন নির্মম শাস্তি তো কেউ দেয় না। আর যারা বেহেস্তের লোভে আর দোযখের ভয়ে চোখ বুজে আপনাকে মহান বলে, তাদের মহান বলাটা জাস্ট ফেক। তারা মীন করে না। আপনি আজ ঘোষণা দিন, যে, পরকাল বলে কিছু নেই, দোযখ বেহেস্ত বলে কিছু নেই। দেখুন কী হয়, অমনি আপনাকে গালি দেবে, যত কবিরা গুনাহ আছে, সব করার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়বে। আগে যে পাপ করতো না তা নয়, করে কাবা ঘুরে আসতো। পাপ মাফ হয়ে যেত। পরকাল নেই জানলে হজে যাবে না, নামাজ পড়বে না, রোজা রাখবে না। আপনার নামও নেবে না। আপনি সৃষ্টিকর্তা জানার পরও না।

–এত খারাপ মানুষ সৃষ্টি করেছিলাম?

–করেছিলেন, এ নিয়ে আফসোস করে এখন লাভ নেই। মাথায় ঘিলু দিয়ে ছেড়ে দিয়েছিলেন। কেউ ঘিলুর অপব্যবহার করছে। কেউ করেনি।

 

উনি খুব বিষণ্ণ বসে রইলেন। এবার বললাম, — আপনি দো জাহানের মালিক। এভাবে বিষণ্ণ বসে থাকা আপনাকে মানায় না। এখানে আপনি খুব বোর ফিল করছেন, মনে হচ্ছে। মাঝে মাঝে তো পৃথিবীটা ঘুরতে পারেন। কিছু লোক তো মনে করে আপনি সর্বত্র আছেন।

–আমি তো সেরকমই একটা আভাস দিয়েছিলাম।

–দিয়েছিলেন তাহলে যান না কেন পৃথিবীতে। সর্বত্র বিরাজ করতে?

–ভয় হয়। মানুষগুলো আজকাল বেশ হিংস্র হয়ে উঠছে।

–সব ঠিক হয়ে যাবে। আপনি বলে দিন, সবাই যেন জাত পাত ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবাইকে ভালোবাসে। দরিদ্রকে সাহায্য করতে বলেছেন ভালো কথা, তবে জরুরি কথাটি বলে দিন। দারিদ্র্য দূর করতে বলুন। মেয়েদের মারতে পারার অধিকার স্বামীদের দিয়েছেন, সেই অধিকার তুলে নিন। সমানাধিকারের কথা বলুন, সমতার কথা বলুন।

–নিশ্চয়ই বলবো। আচ্ছা বলো তো, যখন পৃথিবীর সর্বত্র বিরাজ করতে যাব, তখন তোমার সঙ্গে দেখা হবে তো?

–আপনি চাইলে নিশ্চয়ই হবে।

–আমি কিন্তু একটু বেশি রাতের দিকে আসবো তোমার কাছে। দরজায় নক করবো।

–নিশ্চয়ই।

 

উনি আমাকে বিদেয় দিলেন। চোখ ছলছল।

তসলিমার  ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

ইতিহাসের ষষ্ঠ সর্বোচ্চ আয় ‘স্পাইডার-ম্যান: নো ওয়ে হোমে’র

0

ইতিহাসের ষষ্ঠ সর্বোচ্চ আয় ‘স্পাইডার-ম্যান: নো ওয়ে হোমে’র

স্পাইডার-ম্যান: নো ওয়ে হোম এর একটি পোস্টার। ছবি: টুইটার

চলচ্চিত্রের ইতিহাসে বিশ্বজুড়ে বক্স অফিসে ষষ্ঠ-সর্বোচ্চ আয়ের রেকর্ড গড়েছে স্পাইডার-ম্যান সিরিজের নতুন সিনেমা ‘স্পাইডার-ম্যান: নো ওয়ে হোম’।

মুক্তি পাওয়ার পর ষষ্ঠ সপ্তাহ পার করে এখন পর্যন্ত ১৬৯ কোটি ডলার আয় করেছে সনির এই কমিক বুক অ্যাডভেঞ্চার মুভি।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

পতিতাবৃত্তিতে এবং সারোগেসিতে দরিদ্র মেয়ের জরায়ু ইনভেশানের টাইম আর টাকার পার্থক্য ছাড়া এই দুটোতে আর কোনও পার্থক্য নেই। 

0

সারোগেসি নিয়ে যেই না নিজের মত প্রকাশ করেছি, অমনি পঙ্গপালের মতো আমার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়লো তারা, যারা মেয়েদের শরীরকে পণ্য ভেবে অভ্যস্ত। মেয়েদের অসহায়ত্বের সুযোগে তাদের যৌনাঙ্গ এবং জরায়ু কিনে বা ভাড়া নিয়ে দখল করতে বা হামলা করতে যাদের আপত্তি নেই। 

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

আরিফ আজাদের পরিচয় ও জনপ্রিয় ৫টি আরিফ আজাদের বই

0

আরিফ আজাদের বই অনলাইন এবং অফলাইন দুই জায়গাতেই বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। রকমারি.কম এ বেস্ট সেলার হিসাবে তিনি জায়গা করে নিয়েছেন। শুধু তাই নয়  অমর একুশে বইমেলায়ও তার প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ সিরিজের দুইটা বই নাম্বার ওয়ান সেলার হিসাবে খ্যাতি পেয়েছে।

বই মেলায় স্টলের সামনে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে বই কিনে সবাই। উনার লেখাগুলো কোন মিডিয়া বা পোর্টাল প্রচার করে না। পত্রিকাতেও উনাকে নিয়ে কোন ফিচার লেখা হয় না, বিজ্ঞাপন হয় না, টেলিভিশনে লাইভ হয় না। আর তিনিও ফেসবুকে তেমন লাইভে আসেনি। অধিকাংশ পাঠক উনাকে এখন পর্যন্ত দেখেও নাই, কিন্তু তারপরও উনার বইগুলোর বেশি বিক্রি হবার মুল রহস্য কি?

মূলত উনাকে নিয়ে কিছু বলার মতো যোগ্যতা আমার নেই তবুও উনার সম্পর্কে কিছু বলার ব্যর্থ প্রয়াস। কারণ, উনার সম্পর্কে জানার আগ্রহ নেই এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবেনা। মূলত উনার  লেখার মাধ্যমেই উনার জানার আগ্রহ আরও বেশি করে তুলে। তাকে নিয়ে খুব অল্প পরিমাণে জানার সৌভাগ্য হয়েছে আমার। আপনাদের সাথে সেটুকুই শেয়ার করার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

বিউটি ব্লগারকে যৌন নির্যাতন : আরজে নীরার জামিন নামঞ্জুর

0

ট্রান্সজেন্ডার বিউটি ব্লগার সাদ মুআকে যৌন নির্যাতন ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে রাজধানীর ভাটারা থানায় করা মামলায় আরজে সাইমা শিকদার নীরার জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ সোমবার এ আদেশ দেন ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শফি উদ্দিন।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

USA DV Lottery 2022

0

Diversity lottery which is popularly known as the DV lottery is a United States of America’s Program by which any person from an eligible country can apply for having a status of permanent citizenship in the United States. Living and studying in the United States has been a dream for us. Every year approximately 50000 people from all over the world have the luck to get the DV lottery.

Bangladesh was an eligible country for applying DV until 2012. Still, there are some exceptions for people of Bangladesh and other ineligible country people to apply for DV Lottery 2022. DV lottery system is supervised and controlled by the Department of State and conducted under the Immigration and Nationality Act (INA) of the USA.

Almost everyone can apply for the Diversity Visa Lottery. Bangladesh is not an eligible country to apply for DV lottery because more than 50,000 people from here already got USA citizenship under this Program. But still a person from Bangladesh can apply for the DV lottery.

If you fail to list your spouse who is eligible your DV Application will be treated as your disqualification as a principal applicant. You will not be passed in your visa interview. Remember you must list your spouse even if you intend to be separated from your marriage before you apply for your Diversity Visa. Your spouse who is already is a citizen of the United States does not need to issue any visa. Even if you do you will need not be penalized.

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

পা দিয়ে লিখে এইচএসসি জয়ের স্বপ্ন যশোরের তামান্নার

0

হেঁটে-চলে বেড়াতে পারে না। প্রতিদিন হুইল চেয়ার আর পিতা-মাতা সহপাঠিদের অপেক্ষায় থাকতে হয়। গত বৃহস্পতিবার থেকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। প্রাথমিক সমাপনী, জেএসসি, এসএসসি কৃতিত্বের সাথে জয়ের পরে এবার এইচএসসি জয়ের স্বপ্ন নিয়ে বাঁকড়া ডিগ্রি কলেজের জন্মপ্রতিবন্ধি এই মেধাবী শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করেছেন।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

স্নাতক পাশ করা সুপ্রিয়ার ৫ হাজার টাকায় শুরু করা ব্যবসা এখন ৫০ কোটিতে ছাড়িয়েছে!

0

কিছু করো, না হয় মরো – এমন একটা অবস্থায় দাঁড়িয়ে ছিলেন কয়েক বছর আগেও। চারুকলা থেকে স্নাতক পাশ করার পরই পরিবার বিয়ে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু, নিজের আলাদা একটা পরিচয় তো বানাতে হবে, স্বপ্ন তো পূরণ করতে হবে। তাই পরিবারের কাছে এক বছর সময় চাইলেন। চাইলেন বললে ভুল বলা হবে, বলা ভাল ভিক্ষা করে একটা বছর নিলেন।

বাকিটা ইতিহাস। পরিশ্রম দিয়ে তিনি এখন সফল। তিনি হলেন সুপ্রিয়া সাবু। কোনো পুঁজি ছিল না, ছিল না ব্যবসায়িক কোনো পূর্ব অভিজ্ঞতা। কেবল, নিজের ভাগ্যটা পরীক্ষা করার আগে বিয়ে হয়ে যাওয়ার ভয় পেতেন। যাত্রা শুরু করেছিলেন মোটে পাঁচ হাজার রুপি নিয়ে, সেখান থেকে বানিয়েছেন ৫০ কোটি রুপির সাম্রাজ্য।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!
Translate »