ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা আয়ের উপায়ঃ প্রফেশনাল মোড (পরীক্ষামূলক)

ব্যক্তিগত প্রোফাইল এর জন্য প্রফেশনাল মোড ফিচার চালু করেছে ফেসবুক। পরীক্ষামূলক এই ফিচারের মাধ্যমে যোগ্য ক্রিয়েটরগণ ফেসবুক পেজ তৈরী করা ছাড়াই ফেসবুক থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এটি মূলত ক্রিয়েটরদের জন্য ফেসবুক এর প্যারেন্ট কোম্পানি মেটা এর ১বিলিয়ন ডলার ইনভেস্টমেন্ট এর অংশ। ফেসবুকের পাশাপাশি ইন্সটাগ্রাম ইনফ্লুয়েন্সারগণ ও এই বোনাস পেতে যাচ্ছেন।

 

চলুন জেনে নেওয়া যাক নতুন এই ফেসবুক প্রফেশনাল মোড কি এবং প্রোফাইলের মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের বোনাস দেওয়া নিয়ে মেটা’র পরিকল্পনা সম্পর্কে।

 

ফেসবুক প্রফেশনাল মোড কি?

ফেসবুক প্রোফাইলের নতুন সংযোজন হলো প্রফেশনাল মোড। মূলত এই প্রফেশনাল মোড ব্যবহার করে কোনো আলাদা ফেসবুক পেজ তৈরি করা ছাড়া নিজেদের ফেসবুক একাউন্ট অর্থাৎ ব্যক্তিগত প্রোফাইল মনিটাইজ করে অর্থ আয় করা যাবে। ক্রিয়েটরদের জন্য গঠন করা আলাদা ফান্ড দ্বারা প্রফেশনাল মোডের ক্রিয়েটরদের জন্য বোনাস দেয়া হবে।

 

 

 

ফেসবুক প্রফেশনাল মোড চালু করলে প্রোফাইলের কোন পোস্ট কতজন মানুষ দেখল, কোন ধরনের পোস্টে এনগেজমেন্ট বেশি হচ্ছে এসব তথ্য একটি আলাদা ড্যাশবোর্ডে দেখতে পাবেন। ফেসবুক পেজে যেভাবে বিভিন্ন অ্যানালিটিক্স ডেটা পাওয়া যায়, প্রফেশনাল প্রোফাইলেও সে ধরনের তথ্য পাবেন।

 

কিভাবে কাজ করে ফেসবুক প্রফেশনাল মোড?

প্রফেশনাল মোড হলো ফেসবুক প্রোফাইলের জন্য নতুন একটি ফিচার। ক্রিয়েটরদের গুরুত্ব্ব প্রদান করে আয়ের পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ ইনসাইটস (Insights) প্রদান করা হলো ফেসবুক প্রোফাইলের প্রফেশনাল মোড ফিচারটির লক্ষ্য। নিজের কমিউনিটিকে ভালোভাবে বুঝতে সাহায্য করবে এসব তথ্য। প্রফেশনাল মোড এর মাধ্যমে যোগ্য ক্রিয়েটরগণ রেভিনিউ পেতে পারেন ও তাদের অডিয়েন্স বড় করতে শক্তিশালী টুলসমূহ ব্যবহার করতে পারবেন।

 

[★★] মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করার উপায় জানতে এখানে ক্লিক করুন

 

ফেসবুক প্রোফাইলের জন্য প্রফেশনাল মোডের মাধ্যমে আয়ের একটি প্রধান উৎস হলো রিলস প্লে (Reels Play) বোনাস প্রোগ্রাম। রিলস হলো ছোট ছোট ভিডিও, যা অনেকটা টিকটকের ভিডিওগুলোর মত। টিকটকের মার্কেট ধরার জন্য ফেসবুক রিলস ফিচারটি চালু করে। এখন ব্যবহারকারীদের রিলস বানাতে উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে রিলস বানানোর জন্য বোনাস ঘোষণা করেছে ফেসবুক।

 

 

 

রিলস প্লে বোনাস প্রোগ্রামের আওতাধীন ক্রিয়েটরগণ তাদের মাসিক ভিউ এর উপর নির্ভর করে প্রায় ৩৫,০০০ মার্কিন ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারেন। রিলস ফিচারটি এখনো সকল দেশে নেই। যার ফলে ফেসবুক প্রোফাইলের জন্য প্রফেশনাল মোড ফিচারটি চলে আসলেও রিলস প্লে প্রোগ্রাম এর মাধ্যমে আয়ের পথ তৈরি হতে বেশ কিছুটা সময় লাগতে পারে।

 

প্রফেশনাল মোড এর লক্ষ্য

মেটা সিইও মার্ক জাকারবার্গ এই সপ্তাহে ২০২২ নাগাদ ক্রিয়েটরদের পেছনে ১বিলিয়ন মার্কিন ডলার ইনভেস্ট করার কথা জানান। এই ইনভেস্টমেন্টের অংশ হবে বিভিন্ন ফান্ড প্রোগ্রামসমূহ, ক্রিয়েটর ফান্ড ও অন্যান্য মনিটাইজেশন প্রোগ্রামসমূহ। মূলত নিজেদের প্ল্যাটফর্মে ক্রিয়েটরদের জায়গা করে দিয়ে প্রতিযোগিতা আরো সংকীর্ণ করতে চায় ফেসবুক।

 

ফেসবুক অসংখ্য ক্রিয়েটর থাকলেও এতোদিন ধরে ক্রিয়েটরদের জন্য বোনাস দেয়ার মত বাড়তি কিছু করেনি ফেসবুক। সেক্ষেত্রে অন্যান্য প্ল্যাটফর্মসমূহ বেশ এগিয়ে আছে। ইন্সটাগ্রামে ইনফ্লুয়েন্সার কমিউনিউটি থাকলেও প্রতিযোগিতার কারণে এই মার্কেটে আগ্রহ হারাচ্ছেন অনেকেই। এমনকি ইন্সটাগ্রামের প্রতিষ্ঠাতা নিজেই এই ইনফ্লুয়েন্সার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »